[ অষ্টাদশ শতাব্দী পথ্যক্তর মুরোপায়গণ | কর্তৃক ১,

ভ্ঞাল্সহে শ্রিণল্কা-ন্বিস্ডাল্

ডাক্তার শ্রীতুক্ত ্বল্সেত্র্ুম্যাঞ্থ জনা! এম এ, বি এল, পি আর এন্‌, পি এচ ডি

প্রণীত

শ্রীযুক্ত অজরচন্দ্র সরকার কর্তৃক ইংরাজী হইতে অনুবাদিত

১৯২৩

(0৮৯ ছ]013 [. . 18৬ ৪60) -5110116151 50560 0210116%,

কলিকাতা ওরিয়েপ্টাল প্রেস ১০৭ নং মেছুয়াবাজার স্াট, কলিকাতা ( ভীযুক্ত নলিনচন্দ্র পাল বি, কর্তৃক | মুদ্রিত প্রকাশিত

সুল্ন্য ৯২

তর

প্রাচীন কালে যে সকল যুরোপীয় বাণিজ্য ব্যপদেশে ভারতে বসবাস করিয়াছিলেন, সাহারা এদেশে শিক্ষাবিস্তার করিবার জন্য কিরূপ প্রয়াস পাইয়াছিলেন, ভারতবাসীর পক্ষে যে তাহা একটি অবশ্যজ্ঞাতব্য বিষয় তাহাতে আর সন্দেহ নাই। কিন্তু সাধারণ ইতিহাসে তাহার বিশেষ উল্লেখ নাই। স্থ্প্রসিদ্ধ এঁতিহাসিক ডাক্তার শ্রীযুক্ত নরেন্দ্রনাথ লাহা মহাশয় এই সম্বন্ধে জ্ঞাতব্য বিষয়গুলি একত্র করিয়া যে ইংরাজী পুস্তক প্রকাশ করিয়াছেন, সেজন্য তিনি সাধারণের ধন্যবাদার্হ। ভারতে যুরোগীয়- দিগের আগমন যেরূপ একটি স্থপ্রসিদ্ধ এতিহাসিক ব্যাপার, ভারতে যুরোপীয় শিক্ষার ক্রমবিস্তারও সেইরূপ একটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার অতি প্রাচীন কাল হইতে-__ যে সময়ে যুরোগীয় সভ্যতার অগ্রদূতী গ্রীসীয় রোমক সভ্যতা অনন্তের ক্রোড়ে স্তৃপ্ত ছিল, তখনও ভারতে শিক্ষার স্ব্যবস্থা ছিল, ইহা৷ অস্বীকার করিবার উপায়*নাই অনেকের ধারণা, প্রাচীন ভারতে যে শিক্ষা প্রদ্ত হইত, তাহার মুলে ভাবের আদর্শের প্রাধান্য ছিল-__বাস্তবের কন্মাক্ষেত্রের দিকে তাহার প্রসার অধিক ছিল না। সে শিক্ষা! পরলোকের চিন্তায় মানুষের মন যত অনুরক্ত করিয়া রাখিত, ইহ্‌-

৪৩ অনুবাদকের নিবেদন

লোকের চিন্তায় তত আকৃষ্ট করিত না; সেই জন্য পাখিব ব্যাপারে ভারতবাসী তাদৃশ উন্নতি লাভ করিতে সমর্থ হয় নাই। ধারণা ভ্রান্ত। অতি প্রাচীনকালে ভারতীয় মনস্বিগণ এই উভয়বিধ শিক্ষায় সমভাবে উন্নতি লাভ করিয়াছিলেন তীহাত্বা এক দিকে যেমন বিশ্বপ্রহে- লিকার সমাধানে সমাহিত ছিলেন, অন্যদিকে তেমনই পাথিব সমস্তার মীমাংসায় একা গ্রচিত্ত হইয়াছিলেন। তীহা- দেরই নিশ্মিত নৌবাহিনী বারিধির উত্তাল তরজ-ভঙ্গ উপ- হসিত করিয়া সুদুর মিশরে ফিনিসিয়ায় পণ্যন্রব্য লইয়া যাইত তাহাদেরই নিশ্রিত সুন্মনাতিপুন্সন কার্পাসবন্ত্র চীনের রাজাধিরাজ “উটার' বিস্ময়োত্পাদন করিয়াছিল ; এবং সেই বস্ত্রই রোমের বিনোদ-ভাব-বিহবল! বিলাসিনীদিগের সৌন্দর্য্য সংবদ্ধন করিত। ভারতের স্থাপত্য__ভারতের ভাক্ষর্য্য প্রভৃতির প্রাচীন উন্নতির স্মৃতি ক্রমশঃ অনুসন্ধানের আলোকে প্রকাশ পাইতেছে।

কিন্তু উত্তরকালে নানা কারণে ভারতবাসীর মধ্যে পার্থিব শিক্ষার দ্িকৃট: নিতান্তই সঙ্কুচিত হইয়া পড়ে কি কারণে সেই সঙ্কোচ ঘটে, এইখানে তাহার আলোচনা অপ্রাসঙ্গিক আমার ধারণা__বৌদ্ধ-বিপ্লবের সময় হই- তেই উহা ক্রমশঃ সম্কুচিত হইতে থাকে ; বৌদ্ধ-বিপ্নবের পর যখন হিন্দু ধর্ষনের পুনরুণ্থান ঘটে তজ্জন্য যে হুদিন- " ব্যাপী বিপ্লব বিক্ষোভ ঘটিয়াছিল,-_-তাহাতেই ভাব্রতীয়

ভারতে শিক্ষা-কিস্তার ৬/

লভ্যতার পার্থিব দিক্‌ট। সস্কুচিত হইয়া পড়ে তাহার পর মুসলমান রাজত্বকালে এই অবনতি বিশেষ ভাবে বর্ধিত হয়। এই সময়ে ব্রাহ্মণের টোলে চতুপ্পাীতে সেই প্রাচীন সভ্যতার ভাবের দ্িক--আদর্শের দিক্‌__মতামতের দিক্‌ কতকটা রক্ষা করিবার ঘত্ব হইয়াছিল; কিন্তু পার্থিব দিকটা একরূপ রক্ষকহীন অবস্থাতেই পতিত হইয়াছিল ষোড়শ সপুদশ শতাব্দীতে যে সকল পর্তুগীজ, ফরাসী ইটালীয় প্রভৃতি বিদেশী পর্যটক পণ্যজীবী ভারতে *আসিয়াছিলেন, তীহারাও ভারতীয় সহরের সমৃদ্ধির, স্ব্যব- স্থার শিল্পবাণিজ্যের ভুয়সী প্রশংসা করিয়া গিয়াছেন। _ক্লাইব নিজেই বলিয়াছেন যে; লগুন অপেক্ষাও মুর্শিদা- বাদ সহর সৌন্দর্য্য স্বাস্থ্যে অধিক সমুন্নত ছিল। মুসলমান রাজত্বকালে যখন ভারতীয় শিক্ষায় পার্থিব দিকটা একেবারে লুপ্ত হুইতে বসিয়াছিল, সেই সময়ে ভারতে যুরোগীয়দিগের আগমন ভগবদিচ্ছায় সংঘটিত শুভ ঘটন! বলিয়া মনে হয়। খুষ্ীয় ১৪৯৮ খৃষ্টাব্দে ভাস্‌কো। ডি গামা আফ্রিকা ঘুরিয়া ভারতে কালিকটে আসিয়৷ উপ- নীত হয়েন। ১৫১০ খৃষ্টাব্দে আল্বুকার্ক গোয়া নগর দখল করেন। ইহার পর হইতেই ভারতে 'নান। জাতীয় যুরোপীয়ের আগমন প্রথম আমলে যে সকল যুরোপীয় এদেশে আসিক্েন, তাহাদের মধ্যে অনেক দুঃসাহসী অদ্ভুত- কণ্্মা বিবাদ+প্রিয় লোক ছিল তাহাদের নিজেদের শিক্ষা

15 অনুবাদকের নিবেদন

তত উচ্চ ছিল না, স্থতরাং অন্যের শিক্ষার জন্য তাহাদের নিকট বিশেষ কিছু আশা করা যাইত না। তবে তাহাদের মধ্যে অনেক উচ্চমনা ব্যক্তি মিশনারী আসিয়া" ছিলেন। ধন্ধপ্রচারই মিশনারীদিগের কার্য্য ছিল। ধন্ম- প্রচারের উদ্দেশ্যেই তাহারা শিক্ষাবিস্তারে মনোযোগী হইয়- ছিলেন তীহাদের উদ্দেশ্য যাহাই হউক, শিক্ষাবিস্তার দ্বারা তাহারা, যে এদেশের কল্যাণসাধন করিয়াছিলেন, তাহা অস্বীকার কর! যায় না তাহাদের প্রবর্তিত শিক্ষার প্রভাবে এহিক সমৃদ্ধিসাধনের দিকে এদেশের লোকের দৃষ্টি পড়িয়াছিল।

কিন্তু এই কাধ্য সংসাধনে যুরোপীয় শিক্ষাবিস্তারক- দিগের অনেক বাধা-বিদ্র ছিল। তীহারা ভিন্নধন্মাবলম্বী ছিলেন ; স্থৃতরাং তীাহ।দের কাধ্য আচরণ দেশীয়গণ স্বভা- ব্তঃ সুনজরে দেখিত ন!। সেইজন্য লোক সহজে তাহা দিগের নিকট শিক্ষালীভের জন্য গমন করিত না-_-এই সকল বিদেশী হইতে যথাসম্ভব দূরে থাকিত। বিশেষতঃ তখন প্রতীচ্য বিদ্য। অর্থকরী বিদ্যায় পরিণত হয় নাই, কাজেই দেশের লোকের পক্ষে বিদ্যা শিখিবার কোন আগ্রহ ছিল না এরূপ ক্ষেত্রে যুরোপীয় শিক্ষকদিগের পক্ষে দেশীয় ছাত্র পাওয়াই বিশেষ কঠিন ছিল। ততন্ভিনমন বিভিন্ন যুরোপীয় জাতিদিগের মধ্যে সময় প্রবল বিবাদ প্রায়ই ঘটিত। পর্তগীজদিগের সহিত ওলন্দাজদিগের, ওলন্দাজ-

ভারতে শিক্ষা-বিস্তার 1/০

দিগের সহিত ইংরাজদিগের, ফরাসীদিগের সহিত ইংরাজ- দিগের মধ্যে মধ্যে ঘোর বিবাদ যুদ্ধ উপস্থিত হইত। তাহার ফলে সকল পক্ষেরই শিক্ষা সম্পর্কিত প্রতিষ্ঠানের বিশেষ বিভব ক্ষতি জন্মিত।, কর্ণাট-যুদ্ধে সেণ্ট মেরির স্কুলের ক্ষতির কথা এই গ্রন্থে বর্ণিত আছে।

উপকারকের উপকার ভারতবাসী কখনই বিস্মৃত হয় না। যে সকল যুরোপীয় নানা প্রতিকূল অবস্থার ভিতর দিয়া ভারতে শিক্ষাবিস্তারের প্রয়াস পাইয়াছেন তাহাদের কাধ্যবিবরণ ভারতবাসী মাত্রেরই পাঠ করা কর্তব্য সুধী ডাক্তার লাহা মহাশয় তাহার ইংরাজী ভাষায় লিখিত গ্রন্থে তাহা অতি স্থন্দরভাবে বিবৃত করিয়াছেন। কিন্তু এইরূপ বিষয় কেবল ইংরাজী ভাষায় নিবদ্ধ থাকা উচিত নহে। সেই জন্য আমি এই মুল্যবান্‌ গ্রন্থ বাঙ্গলা ভাষায় অনুবাদ করিলাম। গ্রন্থকার ইংরাজী পুস্তকে যে কৃতিত্বের পরিচয় দিয়াছেন,__পাঠক অনুবাদে তাহার কিঞ্চিৎ পরিচয় পাইলেও আমি আমার শ্রম স্বার্থক মনে করিব অনুবাদের ক্রুটার জন্য অনুবাদকই দায়ী অনুবাদ যথাসম্ভব মূলের অনুযায়ী করিতে চেষ্টা করিয়াছি ; আশা করি, পাঠক সামান্য ক্রুটিগুলি মার্জনা করিবেন ।*

চু'চুড়া, ১৯২২ শ্রীঅজরচন্দ্র সরকার

** এই অনুবাদে মূল ইংরাজী পুস্তকের সমন্ত পাঁদটাক! অনুবাদিত হয় নাই ; আবশ্যক হইলে পাঠক মূল দেখিতে পাঁরেন।

মুল্ন ইহল্া্গী পুস্তকের উপক্রুমণিকা

উনবিংশ শতাব্দীর পূর্বে ভারত-প্রবাসী মুরোপীয়গণ আপনাদের সমাজে এবং এতদ্দেশবাসিগণের মধ্যে শিক্ষা- বিস্তারকল্লে যে প্রচেষ্টা করিয়াছিলেন তাহা লিপিবদ্ধ কর! আবশ্যক | ধন্মবিস্তারের আকাঙক্ষায় অনুপ্রাণিত হইয়। তাহারা এই সকল চেষ্টা করিয়াছিলেন বটে, কিন্তু শিক্ষার মঙ্গলময় প্রচারকল্পে তাহাদের মধ্যে একাস্তিকী বাসনার অসন্তাব পরিলক্ষিত হয় নাই।

প্রথমে শিক্ষা-কার্য্ে হস্তক্ষেপ করা হয় নাই বটে, কিন্তু পরে কেবল মিশনারীরা যে আগ্রহাম্বিত হইয়াছিলেন তাহা নহে। যুরোগীয় বণিক্গণ এবং এখানকার যুরোপের রাজকন্মাচারিগণ তাহার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করিয়াছিলেন তাহাদের মধ্যে কেহ কেহ এই বিষয়ে যেরূপ আগ্রহ দেখাইয়াছিলেন, তাহা হেয়ার, বিট্‌ন্‌ প্রভৃতি তাহাদের পর- বন্তী খ্যাতনাম মহাত্মাগণের আগ্রহের সহিত অনায়াসে তুলনা করা যাইতে পারে। তবে প্রথমোক্ত ব্যক্তিগণের অনুষ্ঠিত কার্য্য শেষোক্ত ব্যক্তিগণের কার্য অপেক্ষা অল্প হইয়াছিল ; কারণ অগ্রবর্তিগণের শ্রম অনুকূল ক্ষেত্রে প্রযুক্ত হইতে পায় নাই। মুরোপীয় শিক্ষা-বিস্তারের উত-

উপক্রমণিকা

সাহী পথপ্রদর্শকগণের এবং তীহাদের সহকক্ধীদিগের শিক্ষাবিস্তারকল্পে প্রচেষ্টার ধারাবাহিক বিবরণ এই পুস্তকে প্রদান করিবার চেষ্টা করা হইয়াছে। প্রীনরেন্দ্রনাথ লাহা ৯৬, আমহাষ্ট ্াট কলিকাতা সেপ্টেম্বর ১৯১৫।

গ্রস্ছঞ্পক্রি্ুল্স

“ভারতে শিক্ষা-বিস্তার” নামক এই গ্রন্থে আমার বন্ধু ডাক্তার নরেন্দ্রনাথ লাহ! যুরোপীয়গণ কর্তৃক ভারতে লোকশিক্ষার ব্যবস্থা গ্রচলন সম্বন্ধীয় প্রচেষ্টার মনোরম বিষয়টি আলোচনা! করিয়াছেন। ডাক্তার লাহার পাঠক- গণের মধ্যে ধাহার! মনে করিবেন যে, পুস্তক-বিবুত প্রচেষ্টা সমুহ অকিঞ্চিতকর এবং অসোন্তধজনক, তাহাদিগকে তিনটি প্রয়োজনীয় ঘটনা স্মরণ করিতে বলা যাইতে পারে

(১) হিসাব করিয়া দেখা হইয়াছে যে, ১৮১৮ খুষ্টাব্দে ইংলগ্ডে প্রতি চারিটি বালকের মধ্যে একটি শিক্ষালাভের স্থবিধা পাইত, এবং অন্য তিনটি সম্পূর্ণ অশিক্ষিত থাকিত। এঁ সময়ের শোচ নীয় অবস্থার দৃষ্টান্ত স্বরূপ কথিত হইয়াছে যে, শ্রমশিল্পপ্রধান বিস্তীর্ণ লাঙ্কেষ্টার কাউন্টির অন্যতম সমৃদ্ধিশালী নগর প্রেষ্টনে ১৮০০০ লোকের বাস থাকিলেও তথায় একটি মাত্র সাধারণের দানপুষ্ট বিষ্ালয় ছিল; তাহাতে ছত্রিশটি মাত্র বালক শিক্ষা প্রাপ্ত হইত। নগরে আরও তিনটি বিদ্যালয় ছিল, একটিতে একজন শিক্ষক শিক্ষাদান করিতেন, অন্য ছুইটিতে শিক্ষয়িত্রী কর্তৃক শিক্ষা প্রদত্ত হইত; কিন্ত্ব এই তিনটি সামান্য বিদ্যালয়ের উপকা- রিতা লাভ করা কয়জন ছাত্রের ভাগ্যে ঘটিয়াছিল, তাহা

॥০/০ গ্রন্থপরিচয়

বলা যায় না। এমন কতকগুলি বিষয় আছে, যেগুলিকে লোকে মুখে প্রশংসা করে কিন্তু কাধ্যে অবজ্ঞ। করে। অষ্টাদশ শতাব্দীতে একং উনবিংশ শতাব্দীর প্রারন্তে লোকশিক্ষা এঁ শ্রেণীর বিষয়ের মধ্যে সর্ববপ্রধান বিষয় ছিল-_-এইরূপ মন্তব্য প্রকাশ করিলে সত্যের অপলাপ করা হয় না। প্রকৃত কথা এই যে, এই পুস্তকে যে সময়ের কথা আলোচনা করা হইয়াছে, সেই সময়ে সাধারণ লোকের ধারণা ছিল যে, দরিদ্র ব্যক্তিদিগের পক্ষে অভ্ভ্তানই পরম কল্যাণকর, কারণ দরিদ্রপন্তানদিগকে শিক্ষাদান করিলে পরিণামে দরিদ্রগণ নিজেদের অবস্থায় অসন্ভুষ্ট হইবে, ইহা বাঞ্চনীয় নহে; এবং উহাদের অবস্থার পরিবর্তনও সম্ভবপর নহে।

(২) ১৯১৪ খুক্টাব্দে ( বর্তমান সময়ে ) যদিও পুরাতন কুসংস্কারগুলির তীব্রত। পূর্ববাপেক্ষ। হ্রাস পাই- য়াছে তথাপি এখনও লোকশিক্ষার প্রয়োজনীয়তা সম্যকৃ- রূপে উপলদ্ধ হয় নাই জনসাধারণ এখনও বিদ্যালয়ের শিক্ষকদিগকে যেরূপ দৃষ্টিতে দেখিয়া থাকে, তাহাই এই উক্তির সপক্ষে প্রকৃষ্ট প্রমাণ। যদিও কয়েকজন শিক্ষক আমাদের ব্যয়ব্ছল সরকারী বিদ্যালয়ে মোটা বেতন পাইয়া থাকেন এবং ইদানীং শিক্ষকদিগের যোগ্যত। উন্নতির ফলে ধাঁহারা দরিদ্র বালকদিগকে শিক্ষাদান করিয়া থাকেন, তীহাদের অবস্থাও কিয়-

ভারতে শিক্ষ1-বিস্তার ॥৩/০

পরিমাণে উন্নত হইয়াছে, তবুও ইহা! কি প্রকৃত নহে যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাধিধারিগণের মধ্যে ধাহারা বয়সের আধিক্য হেতু সৈনিক বিভাগে প্রবেশ করিতে পারেন না, যাঁহাদের ব্যবহারাজীবী হইবার উপযুক্ত চতু- রতা নাই, ফাঁহারা সিভিল সান্তিসে প্রবেশ করিবার উপযুক্ত নহেন, অথবা ধযীহাদের ধন্মযাজক হইবার উপযুক্ত ধন্মভাব নাই, কেবল তাহারাই 'অগত্যা শিক্ষা- কাধ্যে ব্রতী হন। হইতে পারে, উচ্চ স্তরের মধ্য- বিভ্ত শ্রেণীর পিতামাতাগণের পক্ষে তাহাদের সন্তানদিগকে প্রকৃত শিশ্ষা দিবার উপযুক্ত ক্ষমতা নাই ; কিন্তু কারণ যাহাই হউক না কেন, ফলে এই দাড়াইয়াছে যে, কেবল কতকগুলি মুখস্থনবীশের স্টি হইয়াছে এবং তাহাদের উপযোগী কলেজ প্রভৃতির প্রাছুর্ভাব হই- য়াছে। যে সকল বিশিষ্ট মাইনর স্কুলের তত্বাবধানে পাচ ছয় বগসরের জন্য আমাদের বালকগণকে রাখিয়া দেওয়া হয়, স্কুল ত্যাগ করিবার পরে, তাহার! ভ্রম না করিয়া কোন প্রাচীন ভাষায় তিন চারি ছত্র লিখিতে পারে না, অধব! সাধারণের বোধগম্যভাবে এক মিনিট কালও কোন আধুনিক ভাষায় কথা বলিতে পারে না; এখন পর্যাস্তও আমরা এই শ্রেণীর বিদ্ভালয় লইয়াই সন্তুষ্ট আছি। ইহা! সত্য হইতে পারে যে, দারিদ্র্য নিবন্ধন আমর! বাধ্য হইয়া এরূপ অবস্থা সা করিতেছি

৮০ গ্রস্থপরিচয়

কারণ উহার প্রতিকার করা অত্যন্ত ব্যয়সাধ্য। কিন্তু এই ব্যাপার হইতে ইহাঁও স্পষ্ট উপলব্ধ হইতেছে যে, মোটের উপর আমাদের দেশের লোক এইরূপ চাছে। এখন অধিকাংশ লোকেই বুঝিয়াছে ষে, ভাবী শিক্ষকের অধ্যাপনা-বিদ্যা শিক্ষা কর! কর্তব্য কিন্তু শিক্ষকতার উপযুক্ত গুণাবলী অর্জন করিতে হইলে যে পরিমাণ অর্থ ব্যয়িত হয়, তাহার পরিবর্তে ষে আয় ীড়ায়-- সেই আয় সাধারণতঃ স্বল্প শোচনীয় বর্তমান সময়ে ভারতে যোগা শিক্ষকের উন্নতির কোন পথ নাই। এদেশে শিক্ষকের বেতন অতি সামান্য, এবং অধ্যাপনা বৃত্তিতে ভবিষ্যত উন্নতির আশা! নাই বলিলেই চলে

(৩) অতীত কালের শিক্ষা সংক্রান্ত প্রচেষ্টার বিচারকালে আমাদের স্মরণ রাখা আবশ্যক যে, যাহারা গভীর ধন্ধমবিশ্বাসের প্রণোদনে লোকশিক্ষায় ব্রতী হইয়াছিলেন, সেই শ্রেণীর বাক্তি ভিন্ন শিক্ষাপ্রচারে অন্য লোকের উৎসাহ অনুরাগ সুচিত হয় নাই। ক্লাইভ এবং তাহার স্থলাভিষিক্ত অব্যবহিত পরবর্তী ব্যক্তিগণের সময়ে সিভিল সার্ভিসের ছুর্ণামের বিষয় যখন আমরা পাঠ করি তখন আমাদের টি.ভে- লিয়ানের লিখিত 798715 7719$075 ০7 (01781198 ৪709৪ নামক গ্রন্থের ন্যায় গ্রন্থ পাঠ করিলে ভাল হয়, এবং বাঙ্গলার নৈতিক জীবন সম্বন্ধে যাহা পড়ি, তাহার

ভারতে শিক্ষা-বিস্তার ৮৮/৩

সহিত, ইংলগ্ডের নীতি সম্বন্ধীয় আমাদের পঠিত ভগ্জানের তুলনা করা সমীচীন | সেইরূপ ১৭১৫ স্বৃষ্টাব্দ হইতে ১৮১৫ খৃষ্টাব্দ পর্য্স্ত সময়ে ইংলগডে শিক্ষাপ্রচারের গুরুত্ব সম্বন্ধে যে ধারণা ছিল, তাহার সহিত এঁ সময়ে ভারতে সম্বন্ধে যে ধারণা ছিল, . তাহাও তুলন৷ করিলে ভাল হয়। আমাদের অগ্রবস্তিগণের চেষ্টার প্রতি তাচ্ছীল্য প্রদর্শন করিবার পুর্বেব, আমাদের নিজের চেষ্টার পরিমাণ ভাল। ্‌ ডাক্তার লাহা৷ এই পুস্তকে বালকদিগকে শিক্ষাদানকল্পে যুরোগীয়দিগের প্রচেষ্টার বিষয়ই প্রধানতঃ আলোচনা করি- য়াছেন। কিন্ত্ব যেখানে তিনি বাঙ্গলার এপিয়াটিক সোসা- ইটীর স্থাপনার কথা উল্লেখ করিয়াছেন, সেইখানে তিনি ভারতের সাধারণ শিক্ষার 'অবস্থার কথাও অল্প পরিমাণে আলোচনা করিয়াছেন আশ করি, তিনি ভবিষ্যতে অন্য গ্রন্থে যুরোগীয়গণের মধ্যে যাহারা সর্ব প্রথমে এসিয়ার .ভন্তানানুশীলন চচ্চায় নিযুক্ত ছিলেন, তাহাদের মনোড্ বিবরণী প্রকাশে প্রবৃত্ত হইবেন। বিষয়টি বিস্তৃত গভীর। যখন আমাদের মনে পড়ে যে প্রাচ্য বিষয় সম্বন্ধে হল.য়েল (1301911) কৃত গবেষণা আজকাল যুসামান্য ন'রদ বলিয়। প্রতিভাত হইলেও তাহার সময়ে উহা জ্্কানের প্রকৃত উৎকর্ষ সুচিত করিয়াছিল, তখনই যুরোপীয়গণ কর্তৃক এসি- য়ার এই জ্ঞানানুশীলনের আলোচনা কষ্টকর বলিয়। মনে হয়।

৮%/০ গ্রন্থ-পরিচয়

পুর্ববকালের নথি-পত্র পড়িতে পড়িতে যে যুরোগীয়- গণ পুর্বে প্রাচ্যজ্ঞানের খনিতে কাধ্য করিয়া গিয়াছেন তাহাদের কার্যাবলীর অনেক সুন্দর প্রমাণ আমি পাইয়াছি। কিন্তু বিষয় আমার ধারাবাহিক অনুসন্ধান করিবার অবকাশ হয় নাই। মাত্র একটি উদাহরণ দিতেছি ১৭৮৩ খুষ্টাব্দের নভেম্বর মাসে কর্ণেল হেন্রী ওয়াট সন, মিঃ রিউবেন , বারোর প্রতি গভর্ণমেণ্টের মনোযোগ আকষণের জন্য একখানি সুপারিশ পত্র লিখিয়াছিলেন। কর্ণেল তাহার আশ্রিত বারো” সাহেবের গুণর।জীর বর্ণন প্রসঙ্গে এইরূপ লিখিয়াছিলেন £-_প্রথমতঃ ইনিই কেবল ্রাহ্মণদিগের ক্রান্তিপাত হইতে হিন্দুদিগের চারি যুগের কাল নির্ণয় করিয়াছেন ; প্রাচীন এবং নবীন গ্রন্থকারগণ কর্তৃক এই চারি যুগের বিষয় বার বার উল্লিখিত হইয়াছে এবং বিদ্ন্মগুলী মধ্যে এই কালনিরূপণ লইয়। অনেক ভ্রম কল্পনার উৎপত্তি হইয়াছে ।. এই যুগ চতুষ্টয় জ্যোতিষশান্ত্র সম্মত কালমাত্র,_ইহা! তিনি প্রমাণিত করিয়াছেন এবং জ্যোতিষশান্ত্র হইতে ইনি. যুগকাল নিদ্ধারণ করিয়াছেন। সম্বন্ধে আরও অসা- ধারণ এবং কৌতুহলোদ্দীপক বিষয় এই যে, তিনি দেখাইয়াছেন-_ইহা দ্বারা ক্যালডিয়ার গ্রন্থকার বীরো- সাম (.73697:0803, যিনি ভুই সহজ্র বুসর পুর্বে প্রাদুভূতি হইয়াছিলেন ) যে প্রাচীন কালচক্রের কথা

ভারতে শিক্ষা-বিস্তার ৮৬০

উল্লেখ করিয়া গিয়াছেন, এবং যাহা লইয়া যুরোপীয় দীর্শ- নিকর্দিগের মধ্যে অনেক বাদ প্রতিবাদ উপস্থিত হইয়াছিল, এই মতের দ্বার তাহার সুন্দর সমাধান করা যায়

“তিনি ইহাও 'আবিষ্কিত করিয়া গিয়াছেন যে, বিজ্ঞানের যে সমস্ত শারা রুরোগীয়দিগের দ্বারা আবিষ্কৃত বলিয়া অনুমিত হইত, সেগুলি অতি প্রাচীন কাল হইতে ব্রাহ্মণগণের পরিজ্ঞাত ছিল। ব্রাহ্মণগণ দশমিক ভগ্নাংশ বীজগণিতের গণনা জানিতেন এখন যুরোপীয়গণ যেরূপ সুন্মনভাবে চন্দ্র সুযেটর অপে- ক্ষিক গতি জ্যোতিষের অন্যান্য বিভাগ অবগত আছেন, ব্রাহ্মণগণ চারি সহত্র বৎসর পুর্েব সকল বিষয় তেমনই সুন্ষনভাবে অবগত ছিলেন। যে সময়ে অয়ণ মণ্ডলের বক্রতা চবিবশ ডিগ্রী দুই মিনিট মাত্র ছিল সেই সময়ে ষে প্রাচান জ্যোতিষের নির্ঘণ্ট প্রস্থত হইয়াছিল, তাহা হইতে মিঃ বরো উল্লিখিত সিদ্ধান্তে উপনী.5 হইব্া- ছেন, কারণ প্রতি বর্ষে মাত্র অদ্ধ সেকেগ্ডের পার্থক্য স্থিরীকৃত হইয়াছে ; ইহ1 হইতে প্রায় সপ্রমাণ হইতেছে ষে অন্ততঃ চারি সহস্র বুসর পূর্বে নির্ঘণ্ট প্রস্তত হইয়া- ছিল। তিনি আরও এই সিদ্ধান্তে উপনীত হইয়াছেন যে, ইতোমধ্যে যত দূর দেখা গিয়াছে, তাহাতে বুঝ! যায় ্টরাক্ষণগণ বিজ্ঞানের এমন অনেক উন্নতি সংসাধিত করিয়া গিয়াছেন, যাহা এখনও ফুরোপীয়দিগের সম্পূর্ণ

১৭. গ্রন্থ-পরিচয় অপরিজ্ঞাত রহিয়াছে তজ্জন্য ব্রাক্মণদিগের জদ্ভান সন্থন্ধে অনুসন্ধান অনুষ্ঠিত হইলে অনেক অতি প্রয়োজনায় বিষয় উদঘাটিত হইবে

মিঃ বারো কর্তৃক কয়েক সপ্তাহের মধ্যে যেসকল আবিষ্কার হইয়াছে, তাহা হইতে আমার মনে ধারণ। জন্মিয়াছে যে, শীঘ্রই ভারতীয় প্রাচীন বিদ্ভা সম্থন্ধে এমন অনেক ' তথ্য প্রকাশ পাইবে,-যাহাদের মুলা উপকারিতা এখন ঠিক উপলব্ধি করা যাইতেছে না; আমার ইহাও বিশ্বাস যে, যেরূপ অনুপাতে অনুসন্ধানলন্ধ জ্ঞান সাধারণের নিকট প্রকাশিত হইবে, সেই অনুগাতে কোম্পানীর কন্ম্মচারীদিগের মধ্যে হিন্দুদিগের জ্ঞানের সহিত পরিচিত হইবার বাসন! প্রবল হইয়। উঠিবে। এই সভ্যতার যুগে যখন প্রত্যেক জাতিই নূতন আবিষ্কারে স্ব স্ব, দাবী প্রতিষ্ঠা লাভের চেষ্টা করিতেছে, সেই সময়ে মিঃ বারোর জ্ঞান লাভের জন্য যে বিশেষ আগ্রহ দক্ষতার কথা আমি পূর্বেই বলিয়াছি, তদ্দারা তিনি যে বোর্ডের সহায়তা -প্রাপ্তির যোগ্য, ইহা স্বীকার করিয়া আমি আনন্দান্ুভব করিতেছি, আর তাহার কার্যয-দক্ষত। যে সামরিক পূর্ত বিভাগের পক্ষে বিশেষ প্রয়োজনীয়, তাহা৷ বলাই বাহুল্য” এইরূপ আরও অনেক কথা উদ্ধৃত করা যাইতে পারে, যাহা উউইতে সপ্রমাণ হয় যে, আমি যে বিষয় বলিয়াছি তৎ সম্বন্ধে

ভারতে শিক্ষা-বিস্তার ১/

আলোচনা করিবার যথেষ্ট উপাদান বর্তমান আছে। হেষ্টিংসের প্রাচা বিদ্তার অনুরাগ সম্বন্ধে অনেক কথাই লিখিত হইয়াছে বটে, কিন্তু এই বিষয়টি আজিও সম্যক্‌ আলোচিত হয় নাই সমসাময়িক যুরোগীয় চিন্তার উপর বাংলার এসিয়াটিক সোসাইটার পুর্ব পুর্বৰ প্রকাশিত সন্দর্ভাদি কিরূপভাবে প্রভাব বিস্তার করিয়াছিল, তাহাও জানিবার বিষয়। উদাহরণ স্বরূপ একটি মাত্র বিশেষ ঘটনার উল্লেখ করিতেছি £_মুসে সি ল্যাট্রোল ( 24005190)" (9. 182911)6 ) তাহার ০98])1) 9০9 7191907091৪ 819০৪” নামক গ্রন্থে লিখিয়াছেন 2--“আমি কলি- কাতার-_এসিয়াটিক সোসাইটী হইতে প্রকাশিত এবং ইহার প্রতিষ্ঠাতা উইলিয়াম জোন্নদ এবং বেণ্টলি ক্লডিয়াস বুকানন্‌ প্রভৃতি প্রধান প্রধান সভ্যগণের লিখিত পুস্তক প্রাবন্ধাবলী অতিশয় আগ্রহের সহিত পাঠ করি- য়াছি। ১৭৮৪ খৃষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত এই সমিতি ধর্মে পবিত্র মন্দিরাভ্যন্তরে এবং ব্রহ্ষোপাসনার পীঠ মধ্যে প্রবেশ কশ্য়াছে। ইহা যেমন বিজ্্বানের অনেক তথা আবিষ্কার করিয়াছে তেমনি খুষ্ট ধন্মেরও অত্যাবশ্যক জ্ঞান বিষয়েও অনেক তথা আবিষ্কার করিয়াছে গত. 9০ 1$51505 এই সমিতির কার্যবিবরণী (যাহ। কলিকাতায় ুদ্িষ্তু এবং লগ্নে পুনরমু'্রিত হইয়াছিল ) অতিশয় আগ্র- হের সহিত পাঠ করিয়াছিলেন। তিনি কলিকাতার এই

১৭/৩ . গ্রন্থ-পরিচয়

অমিতির অত্যাবশ্যক প্রচেষ্টার বর্ণনা করিয়। বলিয়াছিলেন যে, সেই সকল সদন্ুষ্ঠঠনের জন্য যুরোপ সেই ইংরাজী সমিতির নিকট কৃতজ্তঞতা-পাশে বদ্ধ খণী। 7. 19, 110117)19 তগুকৃত 19581 90. ]? 110011191:01009 গা 8120107 06 1১9119107 নামক পুস্তকে ভারতীয় বিষয়ে বিশেষজ্্গণের যে অবহারণা করিয়াছেন, তাহার অনুশীলনের ফলে কতকগুলি মনোজ্ঞ তথো উপনীত হওয়া যাইতে পারে।

ভারতীর ইতিহাস, আইন ভাষা শিক্ষা করিতে হইলে, ইংলপ্ীয় বিদ্যার্থিগণ সাধারণতঃ কিরূপ অবস্থায় কার্য্য করিতে বাধ্য হন, সেই সম্বন্ধে অধ্যাপক ডেভিড্স তাহার 13000075 17019 বৌদ্ধ যুগের ভারত ) নামক গ্রন্থের ভূমিকায় যেন একটু তীব্র ভাষায় রর্ণনা করিয়াছেন। ইংলগু এবং জাম্মীণ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক সংস্কৃত ভাষা শিক্ষা সম্বন্ধে যেরূপ উৎসাহ দেওয়া হইয়াছে, তাহার তুলনা- মূলক আলোচনা করিলে, এইরূপ মনে হওয়াই সম্ভর যে; ভারত ইংলগ্তীয় সাআাজ্যের অন্তভূ্তি নহে, জার্্মাণ সাঞ্রা- জ্যের অন্তভূক্ত। যে ব্যক্তির প্রাচ্য বিদ্যা আলোচনা করিবার উপযোগী অসামান্য প্রতিভা ছিল, তিনি তীহার কর্মজীবনের উতুকৃষ্টাংশ প্রতিদিন তরুণ বালকগণেকর শিক্ষকতায় অতিবাহিত করিতে বাধ্য হইতেন; কিন্ীদিন পুর্বব পর্য0যস্ত এইরূপ অবস্থাই চলিয়া আসিয়াছিল। অধি-

ভারতে শিক্ষা-বিস্তার ১৩/০

ংশ স্থলেই ইহা! বোধ হয় সত্য যে যে ব্ক্তির অনু- সম্ধান-কার্যয করিবার দক্ষতা আছে, প্রাথমিক শিক্ষা দিবার ক্ষমতা তাহার ষশুসামান্য। ইহাই ডাক্তার বিস্‌ ডেভিড. সের অভিযোগের প্রধান কারণ। আমাদের দৃষ্টি যখন ইংলগ্ডের উপর হইতে অপসারিত হইয়া ভারতের উপর পতিত হয় এবং আমরা দেখিতে পাই যে, দীর্ঘ দিনব্যাপী পরিশ্রমক্রান্ত ব্যক্তিগণের অবসর সময়্রঅধীত ভারতীয় বিদ্যার ফলে এতাদৃশ উন্নতি সংসাধিত হুইয়াছে, তখন আমরা বিস্ময়ে অভিভূত হইয়া পড়ি। ধাঁহাদ্দের এই সকল কা সাধনের উপযুক্ত শক্তি আছে, তাহাদের ভস্তে মুখ্য-ভাবে এই সকল কার্য্যের ভার দেওয়া হয় না_ সেগুলি বাজে কাজ বলিয়। গণ্য হইয়া থাকে ; এবং যে সকল কাধ্য স্থসভ্য গবর্ণমেক্টের সর্বপ্রথম করণীয় বলিয়৷ গণ্য হওয়া! উচিত, সেই সকল কাধ্য স্বেচ্ছারৃত ব্যক্তিদিগকে বিক্ষিপ্ত- ভাবে করিতে দেওয়া আমার মতে বুটিশ-শাসনের সামান্য দৌর্ববল্যের পরিচায়ক নহে। জ্ঞানানুশীলনে উৎসাহ প্রদান করাই ষে স্থুসভ্য গবর্ণমেণ্টের একমাত্র কর্তব্য, তাহ। নহে গব্ষ্পার অনুসন্ধান ফল সাধারণের বোধ- গম্যভাবে যাহাতে প্রচারিত হয়, সভ্য সরকারের সেদিকেও লক্ষ্য থাকা কর্তব্য ডাক্তার লাহা মহা- শয়ের কৃত ভারতে শিক্ষার উন্নতি বিষয়ক এই আলোচন। সতুশিক্ষার সাধারণ উদ্দেশ্যের পরিপোষণ করিবে এই

১/০ ্রন্থ-পরিচয় বিশাসে এই গ্রন্থের সংক্ষিপ্ত ভুমিকা লিখিলাম।

সেন্ট জন্স হাউস, কলিকাতা | ওয়ালটার কে কৃস্মাস্‌ ইভ. ১৯১৪

ফাম্মিংগার

ভারতে. মুসলমান রাজত্বকালে মুসলমান নরপতি, ওমরাহ সাধারণ ব্যক্তি বিদ্যার উন্নতিকল্পে যে চেষ্টা করিয়াছেন, অন্য পুস্তকে তাহার আলোচনা করা হইয়াছে (১) কিন্তু এই গুাশংসনীয় প্রচেষ্টা কেবল তাভাদ্দের মধ্যেই নিবন্ধ ছিল না ।* ষোড়শ শতাব্দী অথবা তাহারও পুর্ণবতর কাল হইতে যে সকল বিভিন্ন যুরোপীয় জাতি ভারতে আগমন করিতে আরম্ভ করিয়া- ছিলেন তীহারা কেবল তীহাদের স্বজাতির মধ্যে নহে দেশবাসীর মধ্যেও বিদ্যা বিস্তারকল্লে একেবারে নিশ্চেষ্ট ছিলেন না। তীহাদের এই প্রচেষ্টার প্রাথমিক ইতিহাস এখন নিতান্ত অস্পষ্ট হইয়া পড়িয়াছে, সেই হেতু প্রাচীন মোগল সম্রাট্দিগের সময়ে যে সকল যুরোপীয় এদেশে আসিতে আরম্ভ করিয়াছিলেন,__ তাহাদের এই বিষয়িণী প্রচেষ্টার স্ুসন্ধদ্ধ বিবরণ লিপিবদ্ধ করা কঠিন হইয়! পড়িয়াছে। যাহা হউক, আমাদের নিকট প্রে সকল উপাদান সংগৃহীত আছে, সেগুলি হইতে যথাসম্ভব তথা সংগ্রহ করিয়। আমর। একটি ধারাবাহিক বিবরণ প্রদান করিতে.চেষ্টা করিব

(১) শ্রস্থকার কর্তৃক মুসলমান শাদনকালে (মুদলমান কর্তৃক ) বিদ্যার উন্নতি নামক পুস্তক ত্রষ্টব্য)

সূচীপত্র

বিষয় পৃষ্টা প্রথম ভাগ দক্ষিণ ভারত সুচনা "*, প্রথম অধ্যায়

ইহক্শগ্ভীম্স ইশ্ডিষ্া কোম্পানীক্র আসেল দল্িশী-ক্ভাল্লত্ভে ম্পিক্ষা। সম্পক্কীক্স জন্ুুট্টা্ন

প্রথম- ধর্ম-শিক্ষা যে রর দ্বিতীয়__লৌকিক শিক্ষা ... .. পা (ক) পর্তুগীজ "ভাষার সাহায্যে শিক্ষাদান

(খ) ইংরাজী ভাষার সাহায্যে শিক্ষার্দীন ; সেন্ট মেরির স্কুল রঃ ১৬

(১) নূতন ভি নিস ফলে সেন্ট মেরির বিদ্যালয়ের প্রতিষ্টা ১২.

বিষয় রা পষ্ঠা (২) সেন্ট মেরির বিদ্যালয়ের নিরমাঁবলী উহার

আভ্যন্তরীণ ব্যবস্থা ... টি ১৪ (৩) প্রাথমিক অবস্থা ... রি ১৮ (৪) বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ এবং উহার স্কান- পরিবর্তন ২০ , (৫) বিদ্যালয়ের আয়... .... ২৪ (৬) সপ্তদশ অষ্টাদশ শতাব্দীতে শিক্ষা-বিস্তার বিষয়ে কোম্পানীর কাযা ... ২৬ দ্িতীয় অধ্যায় €ক্কার্ড ০সণ্উ ভকর্জেঙ্তল্র হুহ্ভ্ভাঙ্গে ম্পিল্ক্ষা সম্পন্কীন্র জন্মু্টীন্ম (ক). সোয়ার্জ রং 2 ৪42 (খ) অন্তান্ত শিক্ষাবিদ্‌. ৩০ (গ) ক্যাপুচিন মিশনারীগণ উর, পরিচালিত রোমান ক্যাথলিক বিদ্যালয় "৩১ তৃতীয় অধ্যায়

প্রথম--১৭৮৭ খুষ্টাব্দে ফোর্ট সেন্ট জর্জ লেডী ক্যাম্বেঁল কর্তৃক : পিতৃমাতৃহীন বালিকাদ্দিগের জন্ত আশ্রম" প্রতিষ্ঠা ৩২ ছ্বিতীর-_বালক-আশ্রম-_বেল সাহেৰের শিক্ষা-পদ্ধতি ৩৭ (ক) বেলের শিক্ষা-পদ্ধতি__ভারতীয় রীতি-গ্রহণ ৪০

(খে) *গ)

€খ).

(ড) () €ছ)

(৬)

বিষয় কডিনারের প্রদত্ত বিবর্ণ ৪১ কডিনার প্রদত্ত বণমালা শিখাইবার বিবরণ ৪৪

ছাত্রদিগের দৈনন্দিন ক]ধ্যাবলী প্রভৃতি বিষয়ে কডিনারের বিবরণ

৪8৫ বিদ্যালয়ের আয় হু ৪৭ ডাক্তার বেলের প্রশংসনীয় কার্য ৪2 ৪৯ ডাক্তার বেলের স্থলাভিষিক্ত পরবস্তিগণ* ৫১

তৃতীয়__প্রধান্তঃ ফোট সেন্ট জর্জের বহিভাগে শিক্ষা-সন্বন্ধীয়

প্রচেষ্টার ইতিহাঁস

(ক) (৭) (গা (ব)

(ক)

(খ)

(ক)

নালিভান্‌ অন্তান্ত লে!ক-শিক্ষক “৫৪ নারী সিংহলে শিক্ষ-পিস্তারের গ্রচেষ্ট। ৫৭ শিক্ষাকাধ্যে এগুলা ৬০ গ্রাগুলার ভিন্ন অন্তান। শিক্ষাবিদ ৬৩ চতুর্থ অধ্যাষ্ব

দক্ষিণ ভারতে রুবোপার প্রতিষ্ঠিত প্রাচান পুস্তকাগার ডন ৭৪ বাঙ্গালাদ্ধ প্রাচীন যুরোপীর পুস্তকাগার ৮৩

পঞ্চম অধ্যায় |

ললিত-লিখন মুললমানগণের মধ্যে বিদ্যা-বিস্তারের,

উপায় স্বরূপ ৮৩

(খ)

গ)

(-5 )

বিষয় মি পুষ্ঠ মুদ্রাযস্ত্র -যুরোপীয়েরা ইহা প্রচলন করিয়াছিল বলিয়া ভারতবাসী বিলম্বে গ্রহণ করিয়াছিল ৮৩ বৃটিশ-ভারতে .প্রথম মুদ্রাযন্ রঃ ৮৯

দ্বিতীয় ভাগ

উত্ভর ভারত +*

কলিকাতা তাহার সন্নিহিত স্থান

. (ক) বেলামীর দাতব্য বিদ্যালয় ... রর ৯৩

(খ) কিয়ার্ণাগারের িদ্যাল্য় ... ১১১২7 ৯৬

(গ) কলিকাতা! ক্ষী স্কুল উহার সহিষ্তীকিরার্াগারের

“বিদ্যালয়ের সম্মিলন. 2. রি ১০৪

(ঘ) ক্ষণস্থায়ী বিদ্যালয় ১১৮0১০২

(ড) অন্ান্ত শিক্ষা প্রতিভান 1... ০,১০৫

(চ)” স্ত্রী-শিক্ষা ১০৫

(ছে) বঙ্গীয়. এসিয়াটিক লোলাইিট রড ১১০ দ্বিতীয় অধ্যায়

কলিকাঁতার বাহিরে শিক্ষা সম্পকিত কাধ্য ... .... ১১২

উপসংহার , ১১৩

নির্ঘণ্ট ১১৭

প্রথম অধ্যায়

উথলনগ্তীয্ ইষ্উ ইন্ডিজ ক্ষোল্পানীক্র আম্মলে দক্ষিন-ভাল্রতে শিক্ষা-সম্পক্ষীক্স জল্ু্টান

প্রথম অংশ

এ্শ্-ম্শিক্ষা ইষ্ট ইগ্ডিয়া কোম্পানীর প্রথম আমলের ইতিহাসে ভারতীয় জনসাধারণের, এমন কি এদেশে জাত যুরোগীয়- দিগের মধ্যেও বিষ্ভা-শিক্ষাদানের প্রত্যক্ষ প্রচেষ্টার প্রমাণ অনুসন্ধান করা নিক্ষল। স্মরণ রাখিতে হইবে যে, ধর্ম-সম্পককীয় উদ্দেশ্যের দ্বারা প্রণোদিত হইয়াই কোম্পানী প্রথমে লোক-শিক্ষায় সচেষ্ট হইয়াছিলেন। দেশীয় জনগণকে খুষ্টধর্ম্ে দীক্ষ-দাঁন এবং কোম্পানীর কম্চারিরা যে সকল স্থানে অবস্থিতি করিতেন, সেই সকল স্থানবাসি- গণের মধ্যে রোমান ক্যাথলিকদিগের সংখ্যাধিক্য-নিবন্ধন যে গোলযোগ ঘটিবার সম্ভাবনা হইয়াছিল, তাহার পরিহার- সাধনই কোম্পানীকে লোকশিক্ষায় প্রবৃত্ত করিয়াছিল। এই বিষয়ে মিষ্টার জে, ডবলিউ, কে বলিয়াছেন,_-“ঠিগি-

| ভারতে শিক্ষা-বিস্তার

দিগের সম্তানগণকে শিক্ষাদানের উদ্দেশ্টেই শ্রীমান জববল- পুরে একটি শ্রমশিল্প-বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত করিয়াছিলেন; যে সকল ভীলকে আউট্র্যাম খুষ্ট ধর্মে দীক্ষিত করিয়া- ছিলেন, তাহাদিগের সন্তানগণকে তিনি খান্দেশে একটি স্কুলে ভন্তি করিয়৷ দিয়াছিলেন এবং নরবলি-প্রদানকারী খন্দদিগের হস্ত হইতে ম্যাক্ফার্সন যাহাদিগকে উদ্ধার করিয়াছিলেন, তাহাদিগকেও লেখ পড়া! শিখাইবার ব্যবস্থা করিয়াছিলেন অপেক্ষাকৃত ইদানীন্তন কালেই প্রকৃতভাৰে লোক শিক্ষাদানের প্রচেষ্টা আরন্ধ হইয়াছে। হিন্দুর্দিগকে শিক্ষাদান কর! থৃষ্টানদিগের কর্তব্য, কথা কোম্পানীর পুর্ববতন কোন কোন সনন্দে স্বীকৃত হইলেও ১৮১৩ খুষ্টাব্দের পূর্বেব সরকারের সেই মহত কাধ্য সংসাধনের কোন প্রকৃষ্ট লক্ষণই দেখা যায় নাই” (১)

আমি পূর্বেবেই' নির্দেশ করিয়াছি যে, থৃষ্ট ধর্্-প্রচাররূপ চরম লক্ষ্য সাধনকল্পেই যুরোপীয়রা এদেশে শিক্ষাদানের চেষ্টা করিয়াছিলেন অধিকন্ত ধন্মাশিক্ষা-প্রদানের দিকেই তাহাদের বিশেষ লক্ষ্য ছিল। দেশীয় জনগণের নিজের মাতৃভাষায় তাহাদের মনে খুষ্ট ধন্দ্রমত অনুপ্ুবিষ্ট করিয়া দেওয়া এবং যাহাতে তাহারা উক্ত ধম্মমত সম্যক্রূপে উপলব্ধি করিতে সমর্থ হয়, সেই উদ্দেশ্যে কোম্পানী

(১) 7. ৯৬০ 18555 42/%75574275% 7 /%2 হি 4. 6০, 0 ৮5000 15170 5877

প্রথম অধ্যায়

ভারতবাসীদিগের মধ্যে পাশ্চাত্য শিক্ষাবিস্তারের চেক্টা করিয়াছিলেন ফুরোপীয়রাও দেই জন্য দেশীয় লোকের ভাষ! শিখিতেন। শুন! যায় ১৬১৪ খৃষ্টাব্দে ভারতবাসী- দিগের মধ্যে খুষ্টধর্্-প্রচারকল্পে তাহাদের স্বদেশব।সী- দিগকে খৃষ্ট ধন্-প্রচারকরূপে গ্রহণ করিবার এবং সকল ধর্ন্মপ্রচারক যাহাতে যোগ্যতার সহিত ধণ্মপ্রচারে সমর্থ হন, তাহার জন্য কোম্পানীর ব্যয়ে তাহাদিগকে উপযুক্ত শিক্ষা দিবার ব্যবস্থা হইয়াছিল কাপ্তেন বেষ্ট জনৈক ভারতীয় যুবককে স্বদেশে লইয়া গিয়া খুষ্ট ধ্মে দীক্ষিত করেন এবং তাহার নাম রাখেন পিটার। ( তদানীন্তন ইংলগ্েশ্বর প্রথম জেমস্‌ তাহার নাম নির্বাচিত করিয়া দিয়াছিলেন। ) বক্তি যাহাতে যোগ্যতার সহিত স্বীয় কর্তব্যপালনে সমর্থ হয়, সেই উদ্দেশ্যে বেব্ট সাহেব তাহাকে কোম্পানীর অর্থে যথাযোগ্য শিক্ষা প্রদানও করিয়াছিলেন এই যুবকটি স্তশিক্ষা লাভ করিয়াছিল, কিন্ ধন্ম-প্রচারকল্ে সেকি করিরাছিল, তাহা জান। যায় না। এই সময় খৃষ্ট ধন্মে দীক্ষাকার্য্যের চেষ্টা চলিতে ছিল এবং তৎসম্বন্ধে বহু প্রস্তাবও উপস্থাপিত হইয়৷ছিল। ১৬৭৭ খৃষ্টাব্দে ইষ্ট ইগ্ডিয়া কোম্পানীর অন্যতম ডিরেক্টার দার্শনিক-গ্রৰর মান্যবর রবার্ট বয়েল্‌, ব্যাক্ষ্টার কর্তৃক ১৬৬০ থুষ্টাব্দে উদ্ভাবিত প্রস্তাবটি কোম্প,নীর নিকট পুনরায় পেশ করিয়াছিলেন এবং সেই সম্বন্ধে তাহার নিজের

ভারতে শিক্ষা-বিস্তার

একটি মন্তব্যও : জানাইয়াছিলেন। সেই মস্তবের মুল কথা এই যে, কোম্পানীর নিযুক্ত চ্যাপ্লেন (গীজ্জার ধন্ম-যাজক ) দিগকে ধন্ম প্রচার করিবার উদ্দেশ্যে বিশেষ- ভাবে শিক্ষাদান করিয়া তাহাদের দ্বাঝাই ধর্ম্মপ্রচার করাইতে হুইবে। অক্সফোর্ডের বিশপ প্রধান ধন্ম-যাজক ) ডাক্তার ফেল্‌ বলেন যে, কোম্পানী যদি অক্সফোর্ড ছাত্র প্রেরণ তাহাদের শিক্ষার সমস্ত ব্যয় বহন করেন, তাহা হইলে তিনি তাহাদিগকে আরবী ভাষা শিখাইবার ভার লইবেন। প্রস্তাবকারিগণের প্রস্তাবটি কাধ্যে পরিণত করিবার জন্য এই কয়টি উপকরণ সুযোগ বর্তমান ছিল £-_

১। বয়েল, কৃত মলয়.ও তামিল ভাষায় অনুদিত বাইবেল শিশ্যবর্গের অনুষ্ঠানাবলি | (4০৮5 91 65 4১1)98198- ). |

হ। গ্রোটিয়াস্‌ প্রণীত 475৮1 01 ৮1৮9 09107196190 1811970) খ্ষ্ট ধন্রের সত্যতা নামক গ্রন্থের পিকক্‌ কৃত আরবী ভাষায় অনুবাদ |

৩। ১৬৩৬ খৃষ্টাব্দে অক্সফোর্ডের আর্চবিশপ লর্ড আরবী ভাষা শিক্ষাদানের জন্য যে অধ্যাপক নিষুক্ত করিয়াছিলেন,_তশুকর্তক আরবী ভাষা শিক্ষাদান। 5:৪1 আরবী ভাষা শিক্ষার্থী ছাত্রগণকে পর্য্যবেক্ষণ করিবার জন্য ডাক্তার ফেলের আত্ম-নিয়োগের প্রস্তাব

পথম অধ্যায়

ইস্ট ইগ্ডিযা কোম্পানীর সদসাদিগের নিকট হইতে যথেক্ট পরিমাণে অর্থ-সাহায্য-প্রাপ্তির প্রত্যাশা

নান! কারণে এই প্রস্তাব ব্যর্থ হইয়ছিল ।-_-১৬৮৬ খৃষ্টাব্দে ডাক্তার ফেলের মৃত্যু, ১৬৯৩ খষ্টাব্দে কোম্পানীর সনন্দের মেয়াদের অবসান এবং কেবল পাঁচ বসরের জন্য পুনরায় সনন্দ-প্রাপ্তি। ইহা ভিন্ন আরবী এবং মলয় ভাষার সাহায্যে ভারতে খৃষ্ট ধর্্ম- প্রচারে বিশেষ কোন ফল হইবে না, _ইহাও বুঝা গিয়।- ছিল। এই উদ্দেশ্যে যে অর্থ সংগৃহীত হইয়।ছিল, তাহার কিয়দংশ বয়েল্‌ কৃত মলয় ভাষায় অনুদিত বাইবেলের মুদ্রণে কেম্পানীর উপনিবিষ্ট স্থানে উহা বিতরণে বায়িত হইয়াছিল এবং অবশিব্ট যাহা ছিল, তাহ! আর্থ- প্রদানকারিদিগকে ফিরাইয়! দেওয়া হইয়াছিল। ইহার কিছুকাল পরে কোম্পানী মনে করিলেন যে, পন্থুগীজ ভাষায় লিখিত পুস্তকে অধিকতর সুফল ফলিবে ; সেই জনা তাহার! কোম্পানীর উপনিবিষ্ট স্থানে বিতরণ করিবার জন্য অনেক পুস্তক প্রদান করিয়াছিলেন। কিন্তু এই ব্যাপারেও কোম্পানী ভুল করিয়া বসিলেন ।-_ভারতের যে সকল স্থানে যুরোপীয়দিগের বসতি ছিল, সেই সকল স্থানে যে পত্তগীজ ভাষায় জন সাধারণ কথোপকথন করিত, তাহার বাহিরের ঠাটটুকু মাত্র পর্তুগীজ ছিল, কিন্তু প্রকৃত পক্ষে উহা নানা ভাষার মিশ্রণে একটা অপভাষ! মাত্র।

ভারতে শিক্ষা-বিস্তার

এঁ সকল স্থানের অধিবাসীদিগের নিকট ইংরাজা ভাষার লিখিত পুস্তক যেমন দুর্বেবাধ্য, বিশুদ্ধ পর্তুগীজ ভাষায় লিখিত গ্রন্থও তজ্রপ। এই অস্থবিধা দূর করিবার জন্য ফোর্ট সেণ্ট জঙ্ডের ধর্মযাজক মিষ্টার লুইস ১৬৯১-_ ১৭১৪ ) “খিচুড়ি” ভাষা শিক্ষা করেন এবং অল্পদিনের মধ্যে উহাতে ব্যুৎপন্ন হইয়া জনসাধারণকে সেই ভাষায় ধন্মোপদেশ প্রদান করিতে থাকেন কিন্তু তিনি ভারত পরিত্যাগ করিলে আর কেহ সেই মিশু! ভাষাকে আমল দেন নাই এবং তীহার পরবর্তী ধর্ত্যাজকগণ ইংরাজী ভাষায় শিক্ষাদানে অধিকতর মনোযোগী হইয়াছিলেন

দ্বিতীয় অংশ

০লীক্কিক্ ম্পিল্কা কোম্পানী ধন্ম-শিক্ষার বিস্তারকল্পলে ধন্ধপ্রচারকগণকে শিক্ষিত করিবার নিমিত্ত আরবী, তামিল প্রভৃতি ভাষায় শিক্ষা দিবার যে সমস্ত ব্যবস্থা করিয়াছিলেন,__-তাহার বিবরণ প্রদানের সঙ্গে সঙ্গে তাহারা এবং ধন্মপ্রচারকবর্গ জনসাধারণকে লৌকিক শিক্ষা গ্রদান্রে উদ্দেশ্যে যাহ।

করিয়াছিলেন, তাহাঁও বিবৃত করা! উচিত

প্রথম অধ্যায়

(ক) পর্তুগীজ ভাষার সাহায্যে শিক্ষাদান

ফোর্ট সেন্ট জর্জেজর অধিবাসী বালক-বালিকাদিগের শিক্ষা-প্রদান সম্বন্ধে কোম্পানীর ডিরেক্টারগন ১৬৭০ খু্টাব্দে বিশেষ অনুসন্ধান করেন এবং তাহাদিগকে কিরূপ ভাবে শিক্ষা দেওয়া আবশ্যক তৎসম্বন্ধে দৃঢ়তার সহিত তাহাদের মত প্রকাশ করেন। ১৬৭৩ খুষ্টাব্দে কোম্পানী প্রিঙ্গল্‌ নামক ক্ষটলগুবাসী জনৈক ধন্ম-প্রচারককে নিযুক্ত করিয়া কাধ্যারস্ত করিয়াছিলেন 1 প্রিঙ্গল একটা বিদ্যালয়ে পর্তগীজ বৃটিশ যুরেশীয়দিগকে এবং কোম্পানীর যে কয়জন অধস্তন কম্মচারীকে তাহাদের অবশ্য-প্রতিপাল্য বলিয়া মনে করিতেন, তাহাদের সন্তানদিগকে শিক্ষা দিতেন। পুর্বেব উল্লিখিত পর্তুগীজ অপভাষাতেই এই বিদ্যালয়ের শিক্ষা দেওয়া হইত। প্রিঙ্গলের বেতন ছিল বাধিক পঞ্চাশ পাউগড বা পাঁচ শত টাকা প্রিঙ্গল, ইংলগ্ডে চলিয়া গেলে তাহার স্থানে মিষ্টার র্যাল্‌ফ অর্ড বেতনেই নিযুক্ত হইয়াছিলেন। তিনি ১৬৭৪ খু্টাব্দ হইতে চারি বসর কাল কাধ্য করেন। তিনি অন্য কাধ্া করিবার অন্ুমতিও পাইয়াছিলেন কিন্তু প্রিঙ্গলকে এইরূপ অনুমতি প্রদত্ত হয় নাই। শারীরিক অসুস্থতার জন্য ১৬৮২ খুষ্টাব্দে অর্ড কার্ধা হইতে অবসর গ্রহণ করেন এবং মাসিক ছয় প্যাগোডা বেতনে, অর্থাণড পুর্বব- বর্তীদিগের ষে বেতন ছিল, তাহার অর্ধেক বেতনে, মিষ্টার

ভারতে শিক্ষা-বিস্তার

বারক্কার তাহার পদে মনোনীত হইয়াছিলেন। ১৭১৭ খষ্টাব্দে বার্কারের স্ৃত্যু হয়”তদবধি এরূপ ব্যবস্থাই প্রবস্তিত ছিল। এই ক্ষুদ্র বিদ্যালয়টি ক্রমশঃ প্রতিষ্ঠালাত করিয়াছিল পিতৃমাতৃহীন বালক-বালিকাদিগের প্রতি- পালনের শিক্ষাদানের জন্য ইহার দাতবা ভাণ্ডারে অর্থাগম হইতে লাগিল ফলে উক্ত বিদ্যালয়ের কার্ধা স্থচারুরূপে তন্জাবধান করা নিতান্তই প্রয়োজনীয় হইয়া! উঠিল বার্কার প্রথম কয়েক বশুসর প্রায় স্বাধীনভাবেই বিদ্যালয়ের কারা করিয়াছি.লন, সেই জন্যও এই তস্বাবধান বিশেষ আবশাক হইয়া উঠে ১৬৯২ খুষ্টাব্দের পর কোম্পানীর ডিরেক্টার- গণ চ্যাপলেনগণের ধেশ্ম-যাজকগণের), হস্তে তবাবধানভার অর্পণ করেন এবং তাহাদের এই নুতন কর্তব্য স্ুনির্ববাহার্থ তাহারা পঞ্ভগীজ এবং তামিল ভাষা শিক্ষা করিতে আদিষ্ট হন। অন্য প্রসঙ্গে আমর! ষে মিষ্টার লুইসের কথা উল্লেখ করিয়াছি, তিনি শিক্ষা বিষয়ে বিশেষ উৎসাহী ছিলেন ; সাধারণভাবে শিক্ষাপ্রদানের জন্য এবং প্রটেষ্টাণ্ট ধন্মের উপদেশ দানের জন্য. তিনি মাদ্রাজ কোর্টের শাসনকর্তী মিষ্টার পিটকে বালকদিগের জন্য একটি এবং বালিকাদিগের জন্য একটা-_এইরূপ দুইটি স্বতন্ত্র শিশু-বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত করিবার পরামর্শ দিয়াছিলেন। পর্তুগীজ ভাষাতে শিক্ষাদানই মিষ্টার লুইসের উদ্দেশ্য ছিল লইসের নিকট পর্তগীজ ভাষায় অনুদিত বাইবেলের

প্রথম অধ্যায় .

প্রার্থনা-পুস্তক এবং প্রশ্নোত্তর পুস্তক (08690101910) ছিল এবং তিনি স্ত্রয়ং বাইবেলের কিয়দংশ অনুবাদ করিতে প্রবৃত্ত হইয়াছিলেন। তিনি পিটের নিকট যে প্রস্তাব করাইয়াডিজেন, তাহা কাধ্যে পরিণত করা হয় নাই বটে, কিন্তু তাহার অনুবাদ করিবার শ্রম একেবারে ব্যর্থ হয় নাই। তিনি ট্রাঙ্কেবারের দিনেমার ধন্ধরযাজক জিগেন্বান্ন এবং গ্রাগ্ডলারের নিকট তীহার অনুবাদের পাগুলিপি পাঠাইয়। দিয়াছিলেন ; তদার্শনে তাহারা সমগ্র বাইবেল অনুবাদ করিতে প্রবৃত্ত হইয়াছিলেন। ততপরে তাহারা ট্রাঙ্কেবারে, ফোর্ট সেন্ট ডেভিডে এবং মাদ্রাজে যে পর্তুগীজ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত করিয়া ছিলেন, সেই সকল বিদ্যালয়ের ছাত্রদিগের মধ্যে সেই অনুদিত বাইবেল বিতরিত হইয়াছিল। কোম্পানী যদিও লুইসের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করিয়া অন্য পন্থা অবলম্বন করিয়াছিলেন, তথাপি তাহার এঁকান্তিক বিদ্যানু- রাগ তাহাকে শিক্ষার উন্নতিকল্লে তীহার সামর্থ্যানুষায়ী শক্তির প্রয়োগ করিতে উৎসাহিত করিয়াছিল। ইহা লুইসের বিশেষ প্রশংসার কথা। তিনি কোম্পানী বা অন্য কাহারও মুখাপেক্ষী না হইয়৷ স্বয়ং একটি অবৈতনিক বিদ্যালয়, প্রতিষ্ঠিত করিয়াছিলেন এবং যত দ্রিন তিন ফোট সেণ্ট জজ ছিলেন, ততদিনই তিনি এঁ বিদ্যালয় পরিচালন করিয়াছিলেন। তিনি চলিয়া যাইবার পর তাহার স্থলা-

১০ ভারতে শিক্ষা-বিস্তার

ভিষিক্ত ধর্মযাজক রেভারেণ্ড উইলিয়াম স্টিভেন্সন্‌ অল্লদিন বিদ্যালয় চালাইয়াছিলেন। ১৭০৩ খৃষ্টাব্দে পর্য্যটক লকিয়ার্‌ মাদ্রাজ ছুর্গ পরিদর্শন করিতে আসিয়াছিলেন ; ইনি লুইসের সময়ের স্থানের বিবরণ লিপিবদ্ধ করিয়! গিয়াছেন। সেই বিবরণে লুইসের বিশেষ কৃতিত্ব বলিত হইয়াছে লাকয়ার্‌ বলিয়। গিয়াছেন যে, গীজ্জার পুস্তকা- লয়ের নিন্মতলে একটি স্ুপ্রশস্ত প্রকোষ্ঠে এই অবৈতনিক বিদ্যালয় বসিত; এই প্ুস্তকালয়টিতে নিতান্ত অল্প পুস্তক ছিল না; পুস্তকগুলির মুল্য ৪৩৮০ টাকা

(খ) ইংরাজী ভাষার সাহায্যে শিক্ষাদান “সেপ্ট, মেরির স্ফূল” | লুইসের পরবর্তী ধন্মযাজক লুইসের প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়টি স্থবিধাজনক বলিয়া মনে করেন নাই। তাহার মনে হইয়াছিল যে, ইংরাজী সৈনিক-সন্তানদিগের পক্ষে পর্তুগীজ বিদ্যালয় অপেক্ষ। ইংরাজী বিদ্যালয়ই অধিকতর প্রয়ো- জনীয়। সেই জন্য তিনি দিনেমার মিশনরীদিগের হজ্জে পর্তুগীজ শিক্ষাদানের ভার দিয়া একটি ইংরাজী বিদ্যালয় (সেন্ট মেরির স্কল ) প্রতিষ্ঠিত করিয়াছিলেন

তিনটি কারণে ফোর্ট সেন্ট জজ্ঞের স্থানীয় কর্তৃপক্ষ

লুইসের বিদ্যালয় এবং প্রস্তাব অনুমোদন করেন নাই,__- (১) লুইস পর্তুগীজ ভাষায় বুৎপন্ন ছিলেন, কিন্তু

প্রথম অধ্যায় | ১১

টিটি এঁ ভাষা জানিতেন না (২) খৃষ্টীয় ধর্ণ্নজ্ঞান- বিস্তারিণী সমিতি (719 ০০195 10৮ 10৮00061779 015156790 1000ঘ19089 ) ইত্পূর্ব্বেই পর্তুগীজ ভাষায় শিক্ষা-দানার্থ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত করিবার জন্য দিনেমার মিশনরীদিগকে অর্থ-সাহায্য করিয়াছিলেন। (৩) অর্থের অনটন-প্রযুক্ত তীহাদ্দিগকে কেবল বৃটিশ যুরেশীয়- দিগের সম্বন্ধে অধিক মনোযোগী হইতে হইয়াছিল এবং উহাদের জন্য একটি ইংরাজী বিদ্যালয়ের প্রয়োজনীয়ত। স্বীকৃত হইয়াছিল।

যাহা হউক, খৃষ্ট-ধর্মে দীক্ষিত দেশীয়দিগের জন্য টিভেন্নন আর একটি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পক্ষপাতী ছিলেন, কিন্তু তাহার প্রস্তাব কাধ্যে পরিণত হয় নাই। ১৭১৫ থৃষ্টাব্দের ডিসেম্বর মাসে সেণ্টমেরির দাতব্য বিদ্যালয় (9. 819175 01)921৮৮ ৪০1709০1 ) নাম দিয়া একটি মাত্র ইংরাজী বিদ্যালয় স্থাপিত হয়; ১৮টি বালক ১২টি বালিকা লইয়! বিদ্যালয়ের কার্য্য আরস্ত করা হয়। ইংরাজী শিখিলে প্রচার-কাধ্যের স্থবিধা হইবে বলিয়া টাঙ্কেবারের দিনেমার মিশনারী মিষ্টীর গ্রাগুলার্‌ খৃষ্টীয় জ্ঞান-বিস্তারিণী সমিতির অনুরোধে একটি পর্তুগীজ যুবককে ইংরাজী শিখিবার জন্য এই বিদ্যালয়ে প্রেরণ করিয়াছিলেন

১২ ভারতে শিক্ষা-বিস্তার

( ১) নূতন সনন্দ-প্রাপ্তি__শিক্ষ।-সম্পকাঁয় ইঙ্গিতের ফলে সেন্ট মেরির বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠ।

এখানে কথা' বলা আবশ্যক যে, সপ্তদশ শতাব্দীর শেষ ভাগে কোম্পানী যে সময় আবার নূতন করিরা সনন্দ গ্রহণ করিয়াছিলেন, সেই সময় তাহাদের কার্যাবলীর বিশেষ সমালোচন! হইয়াছিল। ১৬৯৫ খৃষ্টাব্দে নরউই- চের ডীন (19৪ ), ডাক্তার প্রিডে। যে রিপোর্ট লিখিয়া- ছিলেন, তাহাতে উদাহরণ-ম্বরূপ যে একটি বিপরীত মন্তব্য লিখিত হইয়াছিল, তাহ ষে কিয়্পরিমাণে সতা, তাহা অবশ্যই স্বীকার করিতে হয়।- তিনি বলিয়াছিলেন,__ “ওলন্দাজরা সিংহলে সম্প্রতি একটি কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত করিয়াছে ।......এই বিষয়ে ইংরাজ ইস্ট ইপ্চিয়া কোম্পানী অত্যন্ত অমনোযোগী ।”৮ ইনি বিষয়ে নিজের একটি সংকল্প উপস্থিত করিয়াছিলেন। সেই সংকল্ে অন্যান্য প্রস্তাবের মধ্যে মাদ্রাজের, বোল্বাইয়ের এবং ফোট' সেণ্ট ডেভিডের অধিবাসীদিগকে শিক্ষাদিবার জন্য সকল স্থানে বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত করাই' সমীচীন বলিয়া লিখিত হইয়াছিল প্রিডোর প্রস্তাব যথাবথভ।বে অনুস্থত ন। হইলে তাহার মন্তবোর প্রভাবে এবং এই সন্থন্ধে অন্যন্যি ব্যক্তির সমালোচনার ফলে কোম্পানীর নূতন সনন্দে লোক-শিক্ষ1 প্রদানের জন্য অধিকতর যত্বুশীল হইবার ব্যবস্থা স্পঞ্টাক্ষারে উল্লিখিত হইয়াছিল। ছূর্গাধিষ্ঠিত স্থানসমূহে কোম্পানী

দি

প্রথম অধ্যায় : ১৩

যুরোপীয় যুবকদিগের শিক্ষার্থ শিক্ষক নিযুক্ত করিয়- ছিলেন সতা, কিন্তু যখন . তাহাদিগের উপর এইরূপ. অভিযোগ উপস্থাপিত হয় যে তীহারা ভারতবৰাসীদিগের শিক্ষা-বিষয়ে মনোনিবেশ করেন নাই, তখন তাহারা সে অভিযোগের উত্তর দিতে পারেন নাই সেই জনা সনন্দে নিন্ালখিত ব্যবস্থা সন্িবিষ্ট হইয়াছিল ;-_

“ভারতে উপনীত হইবার পর এক বতসরের মধ্যেই সকল ধন্ম-যাজকই পর্তুগীজ ভাষা শিখিতে বাধ্য হইবেন এবং তীহারা যে সকল দেশে অবস্থিতি করিবেন, সেই সকল দেশের ভাষা শিক্ষাতেও বত্বশীল হইবেন। তাহা হইলে যে সমস্ত হিন্দু, কোম্পানীর অথবা কোম্পানীর কর্ম্মচারীদিগের দাস বা ক্রীতদাস হইবে, তাহাদিগকে প্রটেষ্টাণ্ট ধন্ম-শিক্ষার্দানের সুবিধা হইবে

আমাদের ইহাও ইচ্ছ। এবং তজ্জনা আদেশ করিতেছি যে, কোম্পানী উক্ত সেনাবাস সমুহে এবং প্রধন প্রধান কুীগুলির মধ্যে যেখানে দরকার হইবে, সেইখানেই শিক্ষক রাখিবার ব্যবস্থা করিবেন; উক্ত সনন্দের আর একটি ব্যবস্থা ছিল যে, যে সকল জাহাজে পণীচ শত টনের অধিক মাল বোঝাই হয়, সেইরূপ প্রতোক ক্ঞাহাঁজে শিক্ষকগণ নিযুক্ত থাকিবেন ।”

কোম্পানীর অধীন ব্যক্তিদিগকে শিক্ষাদান কর! আবশ্যক বলিয়া ডিরেক্টারগণ ষে ছয় ভাষায় মন্তব্য প্রকাশ

১৪ ভারতে শিক্ষা-বিস্তার

করিয়াছিলেন, তাহা ষে স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে এঁ কর্তব্য পালনে উদ্ধদ্ধ করিয়াছিল, তাহাতে সন্দেহ নাই এবং এই বিষয়ে ইংলস্তীয় কর্তৃপক্ষের অধিকতর মনযোগী হওয়ার অন্টতম ফলই সেন্ট, মেরির দাতব্য বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা

(২) সেন্ট, মেরির বিদ্যালয়ের নিয়মাবলী উহার আভ্যন্তরাণ ব্যবস্থ।

মিষ্টার হুইলার্‌ এই দাতব্য বিদ্যালয়-সংক্রান্ত বে নিয়মাবলী লিপিবন্ধ করিয়া গিয়াছেন, তাহা পাঠ করিলে উহার আভ্যন্তরীণ অবস্থার প্রকৃষ্ট পরিচয় পাওয়া ঝায়। স্বতরাং সেই নিয়মগুলি নিম্নে উদ্ধৃত করিলে বোধ হয় কোন দোষ হইবে না।

১। ইংরাজাধিষিত নগরের মধ্যে কোনও স্থুবিধাজনক স্থানে প্রথমে ত্রিশ জন দরিদ্র প্রটেষ্টাণ্ট, ধর্মাবলম্বী বালকের উপযুক্ত বাসস্থান নিম্মাণ করিতে হইবে, তথায় তাহারা বিনামূল্যে আহার শিক্ষ। পাইবে

২। ছাত্রগণ ব্যাবহারিক" ধর্ম্মজ্ঞানে এবং আইন দ্বারা প্রতিষ্ঠিত ইংলন্তীয় ধর্্-সন্বন্ধে বিশেষ ভাবে শিক্ষিত হইবে। অতএব যাহারা পার্লামেন্টের বিধিমতে অভিত্ঞ বলিয়া! স্থিরীকৃত হইয়ছেন, সেই সকল শিক্ষকভিন্ন অপর কোন ব্যক্তি এই বিদ্যালয়ের শিক্ষক হইতে পারিবেন না। রর

প্রথম অধ্যায় ১৫

বালক হউক বা বালিকাই হউক যাহাদের পচ বগুসর বা এরূপ বয়ওক্রম হইয়াছে, তাহারাই এই বিদ্যালয়ে ভণ্তি হইতে পারিবে তাহাদের বয়ংক্রম প্রায় দ্বাদশ বর্ষ হইলে তাহারা কর্মচারী বা শিক্ষানবীশরূপে নিযুক্ত হইবে বিদ্যালয়ে অবস্থানকালে বালকদিগকে লিখিতে, পড়িতে, হিসাব রাখিতে এবং তাহাদের আর যাহা কিছু বেশী শিখিবার উপযুক্ত-_তাহাই তাহাদিগকে শিখান হইবে। বালিকাদিগকে পড়িতে গৃহস্থলীর আবশ্যক কাজকম্মন শিখান হইবে

৪। বিদ্যালয়ে ছাব্রগ্রহণ বা অন্য কোন গুরুতর কাজ করিবার-পুর্কেবে মান্যবর গবর্ণর বাহাদুরের সম্মতি লইতে হইবে

৫। শীড্জগর অধ্যক্ষ ধন্মযাজকগণ সর্ববদাই দাতব্য বিদ্যালয়ের পরিদর্শন করিবেন ; তণ্ভিন্ন ধজম।ন-সভ। (৮৪৪- ঠা), স্কুলের সুবন্দোবস্তের সযতুতক্বাবধানের জন্য প্রতি বৎসর আরও তিনজন পরিদর্শক নিযুক্ত করিবেন। এই সকল কাধ্য সংসাধন করিবার জন্য তন্বাবধায়কবর্গ (অথবা! ন্যুনকল্লে তাহাদের মধ্যে চারিজন ) সভাগুহে প্রতি সপ্তাহে একটি অধিবেশনে মিলিত হইবেন। এই অধিবেশনে তাহার! যদি কোন গুরুতর বিষয়ে একমত হুন, তবে সেই বিষয়টির বিবরণী লিপিবদ্ধ করিতে হইবে এবং গবণ্ণরের অনুমোদনের জন্য তাহা তাহ।র নিকট উপস্থিত করিতে হইবে।

১৬ ভারতে শিক্ষ-বিস্তর

৬। যজমান-সভ।| কর্তৃক এক বগসরের জন্য নির্ববাচিত তকীবধায়কদিগের মধ্যে একজনকে বিদ্যালয়ের কো ষাঁধ্যক্ষ নিযুক্ত করিতে হইবে। ইহাকে বিদ্যালয়ের আর, য় স্থিতির রীতিমত হিসাব রাখিতে হইবে $. উহা প্রত্যেক যজমান-সভায় দাখিল করিতে হইবে। ; যদি সাপ্তাহিক সভায় বা অন্য কোন সময়ে অন্যন্য তবাবধায়কগণ কোন চাঁদাদাতা হিসাব দেখিতে চাহেন: তাহা, ছে তাহাকেও উহা! দেখাইতে হইবে রর

৭। স্কলের আয় হাজার প্যাগোডা হইলে অন্যান্য

তন্কাবধায়কের সহিত পরামর্শ করিয়া গবর্ণরের সম্মতি লইয়া কোবাধ্যক্ষ উহা! নৌবাণিজ্যে নিযুক্ত করিবেন বা স্থদে খাটাইবেন ; যদি এই ভাবে উক্ত অর্থনিয়েগ করা ন! হয়, তাহা হইলে উহা সধারণ সুদে গীজ্জাকে কর্্জ দিতে হইবে। .৮। দাতিব্য বিদ্যালয়ের ব্যবহারার্থ এবং উপকারের জন্য যে সমস্ত খত, হুণ্তী, চিঠা, এবং অন্যানা দলিল-পত্র তৈয়ার হইবে সেইগুলি উপস্থিত মত কোষাধ্যক্ষ তত্ব বধায়কদিগের নামে লিখিত হইবে এবং সকল দলিল- পত্র বাবদ টাকা তাহাদের নামে আদায় হইবে |

.৯.। বিদ্যালয়ের জন্য উইল অনুসারে প্রাপ্ত সম্পত্তি, এবং নান উপকারার্থ. লব ভ্রব্যাদি--উহা৷ টাকাই হউক বা অন্য কোন জিনিষই হউক-_তাহাদের বিবরণ।

প্রথম অধ্যায় ১৭

নির্দিষ্ট পুস্তকে কোষাধ্যক্ষ কর্তৃক যথাযথ ভাবে লিখিত হইবে এবং খাতার প্রতি প্ঠার নিম্মদেশে তীহার স্বাক্ষর থাকিবে।

১০। বিস্ভালয়ের পুর্ববকথিত মুল উদ্দেশ্যের এবং প্রকরণ-পদ্ধতির অনুকূল কারণ ভিন্ন অন্য কোন উদ্দেশ্যে বা অপর কোন ভাবে বিদ্যালয়ের সম্পত্তির কোন অংশ কোনরূপ অছিলায় ব্যবহৃত হইতে পারিবে না।

; ১১। সকল প্রকার জটিল ব্যাপারে এবং কোন গুরুতর বিষয়ে বিবাদ উপস্থিত হইলে, তন্বাবধারকগণ যজমান সভা আহ্বান করিবার জন্য গবর্ণরের * নিকট , আবেদন করিবেন ; সেই সভার অধিক সংখ্যক চীদাদাতার ' মতান্ুসারে এই সকল বিষয় মীমাংসিত হইবে। | ১২। উল্লিখিত বিধিগুলি দাতব্য বিদ্যালয়ের স্থায়ী নিয়ম এবং মৌলিক গঠন-বিধি বলিয়। গণ্য হইবে। , তস্বাবধারকগণ এই নিয়মানুষায়ী কার্য করিতে বাধ্য ; ( অতএব উল্লিখিত নিয়মগুলি একখানি খাতার প্রথমেই লিখিয়া রাখিতে হইবে। তত্বাবধারকগণ ভবিষ্যতে বিদ্যালয়-স ংক্রান্ত যে সমস্ত আদেশ এবং বিধি প্রদান (করা আবশ্যক মনে করিবেন, সেই গশুলিও তাহারা সেই খাতায় লিপিবদ্ধ করিয়া রাখিবেন। কিন্ত্ত এই সকল পরবর্তী আদেশ প্রথমতঃ তণকালীন গবর্ণর কাউন্মিলের 1 অনুমোদিত হওয়। আবশ্টুক

চর

১৮ ভারতে শিক্ষা-বিস্তার

এই সকল নিয়মের মধ্যে কতকগুলি লক্ষ্য করিবাব বিষয় আছে, যথা বিদ্যালয়টি ইংলশীয় ধন (00001, 01 7708190) বিদ্যালয় হইবে ; সাতজন ব্যক্তির উপর ইহার পরিচালন ভার থাকিবে দুইজন ধন্মযাজক, দুইজন গির্জজাধ্যক্ষ (01257:01) 7৪7:062.9) এবং যজমান সভা কর্তৃক নির্বাচিত তিনজন তন্বাবধারককে বিদ্যালয়ে ছাত্রগ্রহণ প্রভৃতি বিশেষ ব্যাপারে সকাউন্মিল গবর্ণরের সহিত পরামর্শ করিয়া কাজ করিতে হইবে।

(৩) প্রাথমিক গ্মবস্থ!

এই বিষ্ভালয় প্রতিষ্ঠার কিয়কাল পরে উহার ছাত্র-সংখ্যা ৩০ জনের অধিক হইয়াছিল। দানস্বরূপ প্রাপ্ত অর্থ ব্যতীত ছাত্রদিগের শিক্ষার ভরণ-পোষণের জন্য মাসিক সাহায্য সংগৃহীত হইত বালকগণ একটি মহলে একজন শিক্ষক একজন পরিচালকের তস্তাবধানে থাকিত, এবং বালিকারা একটি স্বতন্ত্র বাড়ীতে একজন শিক্ষপিত্রী তাহার সহকারিণীর অধীনতায় বাস করিত।

দুইখানি দান-পত্র হইতে প্রাপ্ত ৩৫০ পাউণ্ড লইয়। স্কুলটি খোলা হইয়াছিল। কিন্তু অল্প দিনের মধ্যে অন্যান্য লোকের দানে টাকা ১০০০ পাউণ্ডে বা ১০,০০০ টাকায় ঈড়াইয়াছিল; ইহার মধ্যে গবর্ণর স্বয়ং ২২৫ পাউগ্ু দিয়াছিলেন | প্রথমে একটি ভাড়াটিয়৷ বাড়ীতেই স্কুল

প্রথম অধ্যায় ১৯

হইত, কিন্তু ১৭১৭ খৃষ্টাব্দে কোম্পানী এই বিষ্ালয়ের জন্য জার্সি গৃহ তৎসংলগ্ন ভূমি প্রদান করেন। চারিদ্রিক হইতে লোকে এই বিদ্যালয়ের জন্য প্রাথমিক শিক্ষা-পুস্তক, বানানের বই, বাইবেল এবং উহার প্রশ্মোন্তর- পুস্তক মুক্তহস্তে দান করিতে লাগিল। স্কুলের কর্তৃপক্ষ জার্সি গৃহ তৎসংলগ্ন ভূমি বিক্রয় করিয়া কেল্লার পশ্চিমদিকে নদীর মধাস্থিত দ্বীপে একটি নূতন বাড়ী প্রস্তুত করাই স্থির করিলেন। ১৭১৯ খৃষ্টাব্দ হইতে বিছ্ভালয়ের জন্য নৃতন বাড়ী বাবহৃত হইতে থাকে, অবশেষে ১৭৪৬ খুষ্টাব্দে ফরাসীদ্িগের আক্রমণ প্রতিহত করিবার জন্য দুর্গের রক্ষণ বিজ্ঞান-সম্মত ভাবে দৃটীভূত করিবার সময় বিষ্ভালয়টি স্থানান্তরিত করার প্রয়োজন হইয়াছিল। বিদ্ভালয়ের নূতন বাড়ী প্রস্তুত করিতে হাজার প্যাগোড! খরচ হইয়াছিল। দ্বীপে বি্ভালয় সংস্থাপনের জন্য স্থানাভাব হয় নাই। গবর্ণর কাউন্সিল প্রশংসার সহিত মন্তব্য প্রকাশ করিয়াছিলেন ষে, বিদ্যালয়ের বাড়ীটি একটি খুল্যবান্‌ সম্পত্তি এবং স্থানের অলঙ্কারম্বরূপ।

২* ভারতে শিক্ষা-বিস্তার (৪) বিদ্যালযের শিক্ষকগণ এবং উহার স্থান-পরিধর্তন

জন মিচেল, সেণ্ট মেরির বিদ্যালয়ের প্রথম শিক্ষক শিযুক্ত হয়েন। কিন্তু তাহার নিয়োগের ছয় মাসের মধ্যেই তিনি মেয়রের আদালতে দুর্গের সেনানায়ক কর্তৃক ( 9০7500900956 ) অভিযুক্ত হইয়াছিলেন। তীহার বিরুদ্ধে অভিযোগ এই যে,_তিনি উক্ত সেনানায়কের কন্ঠাকে বিবাহের ছলনায় প্রলুদ্ধ করেন এবং সেই বিবাহে তিনি নিজেই বর এবং পুরোহিত উভয়ের কার্য্য করিয়া- ছিলেন। মিচেল যদিও একজন সৈনিক ছিলেন- কিন্তু তিনি ধশ্মযাজকের ভাণ করিয়াছিলেন ; কর্তৃপক্ষগণ তাহাকে ধর্মযাজক বলিয়া স্বীকার করিয়াছিলেন এবং তদনুসারে কাধ্য করেন। তাহারা মিচেলকে সচ্চরিত্রতার জন্য জামিন দিতে এবং যথাসম্তব সত্বর ইংলগ্ডে যাইতে আদেশ করেন। বিদ্ভালয়ের শৈশবাস্থায় এইরূপ ঘটনা ঘটা৷ প্রকৃতই দুঃখের বিষয়! মিচেল পদচ্যুত হন এবং মেন নামে আর এক ব্যক্তিকে তীহার স্থানে নিযুক্ত করা হয়।

১৭৪৬ খুষ্টাব্ষে যখন প্রয়োজন বশতঃ বিদ্যালয়- গৃহ দীপ হইতে স্থানান্তরিত হয়, তখন কোম্পানীর নিকট হইতে ক্ষতিপূরণ-স্বরূপ ন্যাষ্য মূল্য অপেক্ষা কম মূল্য

প্রথম অধ্যায়

আদায় হইয়াছিল ; কিন্তু এই সময় কোম্পানীর অর্থের স্বচ্ছলতা ন! থাকায় বিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষেরও অল্প মূল্য শ্রহণ করা ভিন্ন অন্য উপাঁয় ছিল না। যাহা হউক, কোম্পানী ইহার কতকটা ক্ষতিপূরণ করিয়াছিলেন, কারণ বিদ্যালয়ের তহবিল হইতে কিছুদিনের জঙন্য উচ্চহারে সুদ দিয়া তিন হাজার প্যাগোডা খণ গ্রহণ করেন

দ্বীপ হইতে সরাইয়া লইয়া যাইবার পর, বিদ্যালয়টি ছুইটি স্বতন্ত্র বাটাতে প্রতিষ্ঠিত হয়,-একটি বাড়ী ক্রয় করা হইয়াছিল এবং আর একটি বাড়ী ভাড়া করা হ্য়। বিদ্যালয়ের ট্রাপ্তীরা বিদ্যালয়ের জন্য যে ভূমি ক্রয় করিয়াছিলেন,_-কিছুদিন পরে ভূমি তাহারা ৩০০ প্যাগেড। মুল্যে গবর্ণমেন্টের নিকট বিক্রয় করেন। ইহার তিন মাস পরেই দুর্গ